আজ রবিবার, ২১শে জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ৬ই শ্রাবণ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ১৫ই মহর্‌রম, ১৪৪৬ হিজরি
আজ রবিবার, ২১শে জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ৬ই শ্রাবণ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ১৫ই মহর্‌রম, ১৪৪৬ হিজরি

পদ্মা সেতুর এক্সপ্রেসওয়েতে ১ জুলাই থেকে টোল আদায়

ঢাকা থেকে পদ্মা সেতু হয়ে ফরিদপুরের ভাঙ্গা পর্যন্ত জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এক্সপ্রেসওয়েতে আগামী ১ জুলাই থেকে টোল দিতে হবে।

সোমবার সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের ওয়েবসাইটে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

উপ-সচিব ফাহমিদা হক খান স্বাক্ষরিত প্রজ্ঞাপনে জানানো হয়, এই মহাসড়কে মাঝারি মানের ট্রাকের জন্য কিলোমিটারপ্রতি ১০ টাকা টোল নির্ধারণ করা হয়েছে।

প্রজ্ঞাপনে বলা হয়, ‘জনস্বার্থে এ আদেশ ১ জুলাই, ২০২২ তারিখ হতে কার্যকর হবে।’

তবে বাস ও অন্যান্য পরিবহনের জন্য এক্সপ্রেসওয়ের টোলের হারের সিদ্ধান্ত মঙ্গলবার আসতে পারে বলে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা জানিয়েছেন।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, ঢাকা থেকে ভাঙ্গা পর্যন্ত ৫৫ কিলোমিটারের এ এক্সপ্রেসওয়েতে প্রতি কিলোমিটারের জন্য ট্রেইলার ২৫ টাকা, হেভি ট্রাক ২০ টাকা, বড় বাস ৯ টাকা, মিনি বাস বা কোস্টার ৫ টাকা, মাইক্রোবাস ৪ টাকা, সেডান কার ২.৫০ টাকা এবং মোটরসাইকেল ১ টাকা হারে টোল প্রদান করতে হবে।

সেতুর আগে ঢাকা থেকে মাওয়া পর্যন্ত ৩৫ কিলোমিটার আর সেতুর পরে মাদারীপুরের পাচ্চর থেকে ফরিদপুরের ভাঙ্গা পর্যন্ত ২০ কিলোমিটার এই এক্সপ্রেসওয়ের অন্তর্ভুক্ত।

বর্তমানে ঢাকা থেকে ভাঙ্গায় যেতে পদ্মা সেতু ছাড়াও তিন জায়গায় টোল দিতে হয়। এক্সপ্রেসওয়েতে ওঠার আগে মেয়র হানিফ উড়ালসড়কে টোল দিতে হয়। এরপর ধলেশ্বরী টোল প্লাজায় টোল আদায় করা হয়। এরপর পদ্মা সেতু ও ওপারে হাজি শরীয়তউল্লাহ সেতু ব্যবহারের জন্যও টোল দিতে হয়।

তবে ১ জুলাই এক্সপ্রেসওয়ের টোল কার্যকর হলে এসব জায়গায় আর টাকা দিতে হবে না। সমন্বিতভাবে টোল আদায় করা হবে।

২০২০ সালের মার্চে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ৫৫ কিলোমিটার দৈর্ঘ্যের এক্সপ্রেসওয়ে উদ্বোধন করেন, যা আনুষ্ঠানিকভাবে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মহাসড়ক নামে নামকরণ করা হয়।

সংবাদটি লাইক, কমেন্ট ও শেয়ার করুন