আজ রবিবার, ২১শে জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ৬ই শ্রাবণ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ১৫ই মহর্‌রম, ১৪৪৬ হিজরি
আজ রবিবার, ২১শে জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ৬ই শ্রাবণ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ১৫ই মহর্‌রম, ১৪৪৬ হিজরি

শরীয়তপুরে হযরত মুহাম্মদ (সা.) সম্পর্কে অবমাননাকর মন্তব্যের প্রতিবাদে বিক্ষোভ সমাবেশ ও মিছিল

শরীয়তপুরে হযরত মুহাম্মদ (সা.) সম্পর্কে ভারতের ক্ষমতাসীন দল বিজেপির জ্যেষ্ঠ দুই নেতার অবমাননাকর মন্তব্যের প্রতিবাদে বিক্ষোভ সমাবেশ ও মিছিল করেছে ওলামা পরিষদ ও সর্বস্তরের মানুষ।

বুধবার (৯ জুন) বেলা সাড়ে এগারোটার সময় জেলা কেন্দ্রীয় মসজিদের সামনে থেকে বিক্ষোভ মিছিল শুরু হয় কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে এসে সমাবেশের মাধ্যমে শেষ হয়।

সমাবেশে বক্তারা বলেন, হযরত মুহাম্মদ সাঃ কে নিয়ে কটাক্ষ করে ভারতে ক্ষমতাসীন দল বিজেপির মুখপাত্র নুপুর শর্মা ও দিল্লি শাখার গণমাধ্যম প্রধান নবীন কুমার জিন্দাল যে বক্তব্য দিয়েছে তা সমগ্র মুসলিম উম্মাহর কলিজায় আঘাত দিয়েছে। প্রিয় নবী হযরত মুহাম্মদ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম মুসলমানদের কাছে সবচেয়ে সম্মানী তাদের জীবনের চেয়ে। কোনভাবেই রাসুল পাক সাল্লাল্লাহু আলাই সাল্লাম এর সামান্যতম অসম্মান আমরা মুসলমানরা বদ্মাশ করবো না। আমরা চাই এই দেশ থেকে ভারতীয় পন্য বর্জন করা হোক। পাশাপাশি জাতীয় সংসদের ঘৃণা প্রস্তাবের উত্থাপন করা হোক। যাতে করে এই ধরনের কুলাঙ্গাররা আর কখনো সাহস না পায় ইসলাম ও নবী করীম সাল্লাল্লাহু ওয়া সাল্লাম কে নিয়ে মন্তব্য করা। আমরা ঘৃণার সাথে এই ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি।

তিনি আরও বলেন, বিশ্বের বিভিন্ন দেশ এ ঘটনায় রাষ্ট্রীয়ভাবে প্রতিবাদ জানালেও বাংলাদেশ সরকারের পক্ষ থেকে এখনও প্রতিবাদ না করায় মুসলিম উম্মাহর অংশ হিসেবে আমরা চরম ক্ষুব্ধ ও ব্যথিত।

শরীয়তপুর জেলা ওলামা পরিষদের মহতারাম সভাপতি মাওলানা আবু বক্কর বলেন, এই কুলাঙ্গারদের মুখে নাম নেওয়াও পাপ। তারা আমাদের কলিজার টুকরো বিশ্বনবী মুহাম্মদ সাল্লাল্লাহু আলাই সাল্লাম কে নিয়ে যে কুরুচিপূর্ণ বক্তব্য দিয়েছে। তার প্রতিবাদ ও ঘৃনা জানাই। আমরা চাই এই প্রতিবাদ ও ঘৃণার পাশাপাশি ভারতীয় পন্য বর্জন করা, জাতীয় সংসদে ঘৃণা প্রস্তাব উত্থাপন করা ও ভারতীয় হাই কমিশনারের থেকে জবাব চাওয়া। আর না হলে আমরা ওলামা-মাশায়েখ ও মুসলিম ধর্মের মানুষ প্রিয় নবী হযরত সাল্লাল্লাহু ইসলামের প্রাণ প্রিয় মানুষদের নিয়ে ভারতের অভিমুখে লংমার্চ করতে বাধ্য হবো। আমরা চাই সরকার দ্রুত সময়ের মধ্যে এই দাবিটি আমাদের গ্রহণ করবে।

সমাবেশ শেষে নুপুর শর্মা ও বিজেপি আর নেতার পুষ্প দাহ করা হয়।

সংবাদটি লাইক, কমেন্ট ও শেয়ার করুন