আজ রবিবার, ১৪ই জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ৩০শে আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ৮ই মহর্‌রম, ১৪৪৬ হিজরি
আজ রবিবার, ১৪ই জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ৩০শে আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ৮ই মহর্‌রম, ১৪৪৬ হিজরি

মায়াঙ্ককে পাওয়ার আশা এখনই ছাড়ছে না লক্ষ্ণৌ

তলপেটের ব্যথা সারছেই না মায়াঙ্ক যাদভের। গতি দিয়ে আলোড়ন তোলা লক্ষ্ণৌ সুপার জায়ান্টসের এই পেসারের চলতি আইপিএলে আর খেলা নিয়ে শঙ্কা জেগেছে। দলটির কোচ জাস্টিন ল্যাঙ্গার তো আসরে তার খেলার আর তেমন কোনো সম্ভাবনাই দেখছেন না।

যদিও শেষভাগে মায়াঙ্ককে পাওয়ার আশা এখনই পুরোপুরি ছাড়ছেন না ল্যাঙ্গার। আসর থেকে মায়াঙ্ক পুরোপুরি ছিটকে গেছেন কিনা- এমন প্রশ্নের জবাবে অস্ট্রেলিয়ান সাবেক ব্যাটসম্যান শোনালেন আশার বানী।
তিনি বলেন, “না (পুরোপুরি ছিটকে যায়নি)। আমরা প্রার্থনা করব, সে যেন প্লে অফে খেলতে পারে। তবে আমি একজন বাস্তববাদীও। টুর্নামেন্টের শেষ দিকে ফিরে আসা সম্ভবত তার জন্য কঠিন হবে।”

গত ৩০ মার্চ লক্ষ্ণৌয়ের হয়ে আইপিএল অভিষেক হয় মায়াঙ্কের। প্রথম ম্যাচেই গতির ঝড় তুলে নজর কাড়েন ২১ বছর বয়সী এই পেসার। নিয়মিত ১৫০ কিলোমিটার গতিতে বল করে নাভিশ্বাস তুলে ছাড়েন প্রতিপক্ষের ব্যাটসম্যানদের।

পাঞ্জাব কিংসের বিপক্ষে ওই ম্যাচে ৪ ওভারে ২৭ রান দিয়ে ৩ উইকেট নেন মায়াঙ্ক। পরের ম্যাচে রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালুরুর বিপক্ষে ১৪ রান দিয়ে ধরেন ৩ উইকেট। দুই ম্যাচেই ম্যাচ সেরা হন তিনি। আইপিএলের ইতিহাসে ক্যারিয়ারের প্রথম দুই ম্যাচেই সেরা হওয়া প্রথম খেলোয়াড় মায়াঙ্ক।

গুজরাট টাইটান্সের বিপক্ষে খেলতে নেমে তলপেটে ব্যথা অনুভব করেন ডানহাতি এই পেসার। ওই ম্যাচে মাত্র এক ওভার করেন তিনি। খেলতে পারেননি লাক্ষ্ণৌর পরের পাঁচ ম্যাচে।

গত মঙ্গলবার মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সের বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে মাঠে ফেরেন মায়াঙ্ক। কিন্তু এদিনও কোটার ওভার পূরণ করতে পারেননি তিনি। তলপেটের চোট মাথাচাড়া দেওয়ায় নিজের চতুর্থ ওভারের প্রথম বল করে চলে যান মাঠের বাইরে। সেদিন ৩১ রান দিয়ে নেন এক উইকেট। ল্যাঙ্গার বলেন, স্ক্যানে সামান্য চিড় ধরা পড়েছে মায়াঙ্কের চোটাক্রান্ত জায়গায়।

তিনি জানান, “তার স্ক্যান করা হয়েছে। যে জায়গায় গতবার চিড় ধরা পড়েছিল, সেখানেই সামান্য চিড় পাওয়া গেছে। এটা খুবই দুর্ভাগ্যজনক।”

সংবাদটি লাইক, কমেন্ট ও শেয়ার করুন