আজ বুধবার, ২৪শে জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ৯ই শ্রাবণ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ১৮ই মহর্‌রম, ১৪৪৬ হিজরি
আজ বুধবার, ২৪শে জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ৯ই শ্রাবণ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ১৮ই মহর্‌রম, ১৪৪৬ হিজরি

প্রিন্স উইলিয়ামের সঙ্গে চিঠি চালাচালি করতেন ব্রিটনি!

যুক্তরাষ্ট্রের মুদ্রা ডলারের বিপরীতে শুক্রবার মান কমে গেছে ব্রিটিশ পাউন্ডের, যা ৩৭ বছরের মধ্যে সর্বনিম্ন। মুদ্রার মান কমেছে ১ শতাংশেরও বেশি। রয়টার্স এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে। মান কমে গিয়ে পাউন্ড ও ডলারের বিনিময় হার দাঁড়ায় ১ পাউন্ড = ১ দশমিক ১৩৫১ ডলার । ১৯৮৫ সালের পর এ হার সর্বনিম্ন। এরপর কিছুটা দর বেড়েছে পাউন্ডের। বর্তমানে ১ পাউন্ড = ১.১৪ ডলার।

আগস্টে খুচরা বিক্রয় কমে যাওয়ার কারণে যুক্তরাজ্যের অর্থনীতি নিয়ে শঙ্কা তৈরি হয়েছে। জীবনযাপনে ব্যয় বেড়ে যাওয়ায় ধুঁকছে ব্রিটিশরা। অনেকে খরচ কমিয়ে দিচ্ছে। এর ফলে খুচরা বিক্রি কমে গেছে।অর্থনীতির বিভিন্ন সূচক ব্যাখ্যা করে এক বিশ্লেষক মত দিয়েছেন, ব্রিটেনের অর্থনীতি মন্দার পর্যায়ে চলে গেছে।
এর আগে আগস্ট মাসে ডলারের বিপরীতে পাউন্ডের দরপতন হয়েছে ৫ শতাংশ। ২০১৬ সালের অক্টোবরে পাউন্ডের বড় ধরনের পতন হয়েছিল। তারপর এটিই ছিল সর্বোচ্চ দরপতন।

ব্রিটিশ মুদ্রার মান কমে যাওয়ার অর্থ হলো, বিদেশ ভ্রমণে ব্রিটিশ নাগরিকদের ব্যয়ের সক্ষমতা কমে যাওয়া। জুলাই মাসে যুক্তরাজ্যের মূল্যস্ফীতির হার দাঁড়ায় ৪০ বছরের মধ্যে সর্বোচ্চ ১০ দশমিক ১ শতাংশ, যদিও আগস্ট মাসে তা ৯ দশমিক ১ শতাংশে নেমে আসে।

সংবাদটি লাইক, কমেন্ট ও শেয়ার করুন